A TRI-Language Channel Bengali | kokborok | English

চাকমাদের বিজু ফাং অনুষ্ঠানে থাকলেন রাজ্যপাল, ১৩ এপ্রিল থেকে শিলাছড়িতে রাজ্য ভিত্তিক বিজু উৎসব

চাকমাদের বিজু ফাং অনুষ্ঠানে থাকলেন রাজ্যপাল, ১৩ এপ্রিল থেকে শিলাছড়িতে রাজ্য ভিত্তিক বিজু উৎসব

হেডলাইন্স ত্রিপুরা ওয়েব ডেস্কঃ চাকমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী বিজু উৎসবকে সামনে রেখে আগরতলায় অনুষ্ঠিত হলো সাংস্কৃতিক কর্মসূচি। এই লক্ষ্যে আগরতলার রবীন্দ্র শত বার্ষিকী ভবনে রবিবার বিকেলে আয়োজন করা হয় বিজু ফাং অনুষ্ঠানের। আর এই অনুষ্ঠানের সূচনা করেন রাজ্যপাল কাপ্তান সিং সোলাঙ্কি। প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনায় অংশ নিয়ে চাকমা ভাষাভাষীদের কৃষ্টি সংস্কৃতি বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ মতামত তুলে ধরেন রাজ্যপাল। পাশাপাশি আসন্ন বিজু উৎসবের সফলতা কামনা করেন। সেই সাথে চাকমা জনজাতিদের কৃষ্টি সংস্কৃতি রক্ষায় বিশেষ গুরুত্ব তুলে ধরেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান।

চাকমা সম্প্রদায়ের ঐতিহ্যবাহী উৎসব ‘বিজু’। ইংরেজী বছরের এপ্রিলের ১৩ থেকে ১৫ এপ্রিল তিনদিনের বিজু উৎসব করা হয়। অর্থাৎ বাংলা বছর শেষের শেষ দুদিন এবং বছর শুরুর প্রথম একদিন মিলিয়ে তিনদিনের উৎসব হয়ে থাকে। চাকমা অধ্যুষিত প্রতিটি এলাকা বা জনপদে ঘরোয়াভাবেও বিজু পালন করা হয়। তার ব্যক্তিক্রম হচ্ছে না এবারও। প্রশাসনিক স্তরে এবছর রাজ্যভিত্তিক বিজু উৎসবের আয়োজন হতে চলেছে গোমতী জেলার সীমান্তবর্তী শিলাছড়ি এলাকায়। আর এই উৎসবকে সামনে রেখে ত্রিপুরা চাকমা স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন এবং চাকমা ইয়ুথ কালচারাল ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে রবিবার বিকেলে রবীন্দ্র শত বার্ষিকী ভবনে আয়োজন করা হয় বিজু ফাং কর্মসূচির। অনুষ্ঠানে উদ্বোধক তথা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যপাল কাপ্তান সিং সোলাঙ্কি। বিশিষ্ট অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকেন ত্রিপুরা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন উপাচার্য ডঃ অরুনোদয় সাহা এবং বিজু ফাং কমিটির চেয়ারম্যান তথা শিক্ষাবিদ কাকলি চাকমাপ্রধান অতিথির ভাষণে আলোচনায় অংশ নিয়ে রাজ্যপাল কাপ্তান সিং সোলাঙ্কি চাকমা ভাষাভাষীদের কৃষ্টি, সংস্কৃতি সম্পর্কে নানা তথ্য তুলে ধরেন। রাজ্যপালের কথায়, চাকমা ভাষীদের একটা স্বকীয় ঐতিহ্য রয়েছে। ভারতের ত্রিপুরা, মিজোরাম, আসাম, মেঘালয়, পশ্চিমবঙ্গ সহ বিভিন্ন জায়গায় তাদের বাস। মিজোরামে তাদের জন্য একটা স্বশাসিত জেলা পরিষদ রয়েছে। এছাড়া বিভিন্ন দেশেও চাকমা জনগোষ্ঠীর মানুষ অবস্থান করছেন। পাশাপাশি বিজু উৎসবের তাৎপর্য নিয়েও আলোচনা করেন তিনি।

এদিন অনুষ্ঠানে চাকমা যুবক যুবতীরা গান ও নৃত্য পরিবেশনায় অংশ নেয়। অনুষ্ঠিত হয় বর্ণাঢ্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এছাড়া আগরতলা সহ বিভিন্ন জায়গা থেকে আবাল বৃদ্ধ বনিতা এই অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহণ করেন। তবে মুল আকর্ষণ থাকলো শিলাছড়িতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ১৩ এপ্রিল থেকে রাজ্য ভিত্তিক ৩ দিনের বিজু উৎসব। যেখানে ৩ দিন ধরে থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, নাচ গান, খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা।

Loading...
  • Link Shortener

  • http://headlinestripura.in/z/701

Leave a Comment