A TRI-Language Channel Bengali | kokborok | English

জামিন খারিজ হতেই চোরের মতো পালালো বিরোধী দলের উপ-নেতা বাদল চৌধুরী

জামিন খারিজ হতেই চোরের মতো পালালো বিরোধী দলের উপ-নেতা বাদল চৌধুরী

বিগত বাম আমলে ৬শ কোটি টাকা আর্থিক কেলেঙ্কারির অভিযোগে অভিযুক্ত করা হল সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য প্রাক্তন পূর্তমন্ত্রী বাদল চৌধুরীকে। পুলিস তাকে গ্রেফতারে রাজ্য সিপিএমের সদর দপ্তরে একাধিক বার হানা দিয়েছে। দু’দিনের অন্তর্বর্তী জামিন পেলেও বুধবার রাতে আগাম জামিনের আবেদন নাকচ হয়ে যায় বাদল বাবুর। জামিন নাকচ হতেই নিরাপত্তারক্ষীকে রীতিমতো ধুলো দিয়ে পালিয়ে গেছেন বিরোধী দলের উপ-নেতা বাদল চৌধুরী। তার সন্ধানে রাতভর তল্লাসি চলে। এখনো পর্যন্ত তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিস। বাদল বাবুর আইনজীবী অরিন্দম ভট্টাচার্যী জানিয়েছেন, হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করবেন বাদল বাবু। ৭ বারের বিধায়ক, দুই বারের মন্ত্রী, ১ বারের সাংসদ, বর্তমান বিধানসভার বিরোধী দলনেতা বাদল চৌধুরী সিপিএম কেন্দ্রীয় কমিটির প্রবীণ সদস্য। সরকার পক্ষের আইনজীবী বিশ্বজিৎ দেব জানিয়েছেন, আর্থিক কেলেঙ্কারির সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে প্রাথমিক ভাবে প্রমাণ মিলেছে। বাদল চৌধুরীর সন্ধানে সিপিএম পার্টি অফিস থেকে শুরু করে পত্রিকা দপ্তর, বিধায়কদের আবাস সহ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালায় পুলিস। উল্লেখ্য, সিপিএমের শাসনে পূর্তদপ্তরে ৬শ কোটি টাকার একটি দরপত্রকে ঘিরে এই কেলেঙ্কারি। ক্ষমতা পরিবর্তনের পর মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব এই ঘটনার ভিজিলেন্স তদন্তের নির্দেশ দিয়েছিলেন। ভিজিলেন্স তদন্তে একাধিক অসংগতি উঠে এসেছে বলে আইনমন্ত্রী রতন লাল নাথ জানিয়েছেন। তার অভিযোগ এই কেলেঙ্কারির সাথে প্রাক্তন প্রধান সচিব যশপাল সিং ও পূর্ত দপ্তরের শীর্ষ আধিকারিক সুনীল ভৌমিক জড়িত। ইতিমধ্যে পুলিস সুনীল ভৌমিককে গ্রেফতার করেছে। তিনি বর্তমানে জেল হেফাজতে রয়েছেন। পূর্তমন্ত্রী বাদল চৌধুরীর দাবী, তিনি সম্পূর্ণ নির্দোষ। দরপত্র নিয়ে যা সিদ্ধান্ত হয়েছে তা নেওয়া হয়েছে ওয়ার্ক এডভাইজারি কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী। এই কমিটিতে তিনি ছিলেন না। এমনকি এফআইআরেও তার নাম নেই। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতে এই মামলা বলে তার অভিযোগ। যদিও এই অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছে সরকার। আইনমন্ত্রী শ্রীনাথ জানিয়েছেন, ভিজিলেন্স তদন্তেই বাদল বাবুর নাম এই দরপত্র কেলেঙ্কারির সাথে যুক্ত থাকার অভিযোগে উঠে এসেছে। আইন আইনের পথেই চলছে। এই কেলেঙ্কারির সাথে আরও জড়িত আছে বলে তার দাবী। বাম আমলে প্রত্যেকটি দুর্নীতির তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী শ্রী দেব।  

  • Link Shortener

  • http://headlinestripura.in/z/1482

Leave a Comment