A TRI-Language Channel Bengali | kokborok | English

হোষ্টেল কর্তৃপক্ষের অমানবিক নির্যাতনের ফলে মৃত্যু হল এক স্কুলছাত্রের

হোষ্টেল কর্তৃপক্ষের অমানবিক নির্যাতনের ফলে মৃত্যু হল এক স্কুলছাত্রের

হোষ্টেল কর্তৃপক্ষের অমানবিক নির্যাতনের ফলে মৃত্যু হল এক স্কুলছাত্রের। ঘটনাটি ঘটে ঊনকোটি জেলার কুমারঘাটের হলিক্রস স্কুলের হোস্টেলে। মৃতের নাম হেপী দেববর্মা। তার পরিবারের তরফে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। দাবী উঠেছে অবিলম্বে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহনের জন্য। উনকোটি জেলার ফটিকরায় থানাধীন ডেমডুম এডিসি ভিলেজের রাজমালা দেববর্মার ১৫ বছরের ছেলে হেপী দেব্বর্মা কুমারঘাটের হলিক্রস ইংলিশ মিডিয়াম স্কুলের বয়েজ হোস্টেলে থেকে পড়াশুনা করতো।স্কুলের নবম শ্রেণীর ছাত্র ছিল সে।গত ২৬ সেপ্টেম্বর স্কুলের পরীক্ষা শেষে স্কুল বন্ধের পর তার মা তাকে হোস্টেল থেকে বাড়িতে নিয়ে যায় তারপরই হঠাৎ করে ছেলেটি জ্বরে আক্রান্ত হয় বাড়ীতে। তারপর তাকে প্রথমে মনু হাসপাতালে এবং পরে সেখান থেকে রেফার করা হয় আগরতলা জিবি হাসপাতালে। সেখানে চিকিৎসকরা তার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে জানান যে তার বুকে মারধর করা হয়েছে এবং এর ফলে বুকের হাড় ভেঙে গেছে। তারপর ঘটনাটি তার মাকে খুলে বলে হেপী দেব্বর্মা। মৃত নাবালকের মা রাজমালা দেববর্মা তার ছেলের বক্তব্য অনুযায়ী বিদ্যালয়ের ছাত্রাবাসের ওয়ার্ডেন বুরচুং হালাম তাকে গত ২৫ তারিখে বিনা কারনে প্রচণ্ড মারধোর করে। আর এতেই সে অসুস্থ হয়ে পড়ে। তারপর তাকে প্রথমে মনু এবং পরে আগরতলা জিবি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ৬ তারিখে মৃত্যু হয় হেপী দেব্বর্মার। এদিকে এবিষয়ে মৃতের পরিবারের অভিযোগ অস্বীকার করে ঘটনাকে চেপে যাওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে হোষ্টেল কতৃপক্ষ। হোষ্টেলের ইনচার্জ ফাদার লেন্সির ঘটনাকে চেপে যাওয়ার বিষয়টি উঠে এলো। সংবাদ মাধ্যমের সামনে তিনি ঘটনা কিছুই জানেননা বলে প্রতিক্রিয়া দিলেন। অন্যদিকে মৃতের পরিবারের তরফে অভিযোগের কাঠগড়ায় দাড় করানো বুরচুং হালামকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে বলে জানালেন। আর উনার এই বক্তব্যেই হোষ্টেল কতৃপক্ষ এবং ওয়ার্ডেনকে প্রশ্নের মুখে ঠেলে দিল। এবিষয়ে কুমারঘাট থানায় মৃতের পরিবারের তরফে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। অতিসত্তর অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারের দাবীতে প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও ব্হষ্পতিবার কুমারঘাট থানায় ডেপুটেশন প্রদান করা হয়। একদিকে পরিবারটি আর্থিক দিক দিয়েও স্বচ্ছল নয়, ঠিকমতো থাকার জন্য একটি ভালো ঘড়ও নেই, বাড়ীর কর্তাও অসুস্থ। তার মধ্যেও দিনমজুরের কাজ করে এক ছেলে এবং দুই মেয়েকে নিয়ে কোনমতে সংসার চলতো তাদের। এরইমধ্যে ছেলেকে চিরতরে হারিয়ে আরও ভেঙে পড়েছে পরিবারটি। ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত ক্রমে দোষীর উপযুক্ত শাস্তির দাবি তুলছেন এলাকাবাসী।

Loading...
  • Link Shortener

  • http://headlinestripura.in/z/1461

Leave a Comment