A TRI-Language Channel Bengali | kokborok | English

রবিবার ভোরে নবজাত এক ছেলে শিশু উদ্ধার হল সিধাই থানাধীন ঈশানপুর শ্লুইচ গেট এলাকা থেকে

রবিবার ভোরে নবজাত এক ছেলে শিশু উদ্ধার হল সিধাই থানাধীন ঈশানপুর শ্লুইচ গেট এলাকা থেকে

রবিবার ভোরে নবজাত এক ছেলে শিশু উদ্ধার হল সিধাই থানাধীন ঈশানপুর শ্লুইচ গেট এলাকা থেকে। পরে এলাকার নির্মল দাস ও সুজিত দাস শিশুটিকে কাতলামারা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে ধারনা করা হচ্ছে কোন মার অবৈধ সন্তান এই শিশুটি। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়। মাটিতে কাপড় জড়ানো অবস্থায় এক সদ্যোজাত শিশুর কান্নার শব্দ শুনে রবিবাসরীয় সকাল এল সিধাই থানাধীন ঈশানপুর  স্লুইস গেট সংলগ্ন  এলাকার লোকজনদের। ভোরবেলা পথ চলতি লোকজনেরা হটাত করেই কান্না শুনতে পায় শিশুটির। প্রাতভ্রমন করা লোকজন এই পথে হাটাচলা করেন রোজ। এলাকার নির্মল দাস ও সুজিত দাস নামে দুই ব্যাক্তি দেখতে পায় শিশুটি হাত পা ছুড়ে কান্না করে চলেছে। সাথে সাথে তাদের চিৎকারে ছুটে আসে এলাকার লোকজন। সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে তারা শিশুটিকে নিয়ে যায় কাতলামারা প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে। সাথে সাথে তার চিকিৎসা শুরু হয়। তবে কপাল গুনে শিশুটি বেচে যায়। চিকিৎসক মৌসুমি দাস জানান শিশুটি বর্তমানে সুস্থ আছে। তবে বেশিক্ষন রাস্তার পাশে জঙ্গলে থাকলে পোকা মাকড়ের আক্রমন করার ভয় থেকে যেত। এলাকার লোকজনদের ধারনা কোন মার অবৈধ সন্তান এই শিশুটি। যার ফলে রাতের অন্ধকারে নবজাতক শিশুটিকে এখানে মৃত্যুর মুখে ফেলে দিয়ে গেছে। শিশুটি উদ্ধার হবার পর স্থানীয়দের মধ্যে থেকে অনেকে দাবি করেছেন শিশুটিকে নিজেদের হেফাজতে রেখে দিতে পরম মমতায়কিন্তু যেহেতু এই প্রক্রিয়াটি সম্পূর্ন অবৈধ। তাই কাতলামারা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিজেদের কাছেই শিশুটিকে রেখে আপাতত রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব নিয়েছেন। এই সমাজে এমন অনেক দম্পতি আছেন যারা একটি সন্তানের জন্য বহু কামনা করে আসছেন। তাই তারা চাইছেন শিশুটিকে নিজেদের কাছে রেখে দিতে। যদিও হাসপাতালের তরফে চাইল্ড লাইনে খবর দেওয়া হয়েছে শিশুটিকে নিয়ে যাবার জন্য যে বা যারা শিশুটিকে এখানে মৃত্যুর মুখে ফেলে দিয়ে গেছে তাদের অমানবিকতার দিকটি ফুটে উঠেছে এই ঘটনায়।

Loading...
  • Link Shortener

  • http://headlinestripura.in/z/1327

Leave a Comment