A TRI-Language Channel Bengali | kokborok | English

সাংবাদিক হত্যার তদন্ত গুটিয়ে আনতে তৎপর সিবিআই, খুনের মামলা সম্পর্কিত বিষয়ে কয়েকজনের বয়ান সংগ্রহ

সাংবাদিক হত্যার তদন্ত গুটিয়ে আনতে তৎপর সিবিআই, খুনের মামলা সম্পর্কিত বিষয়ে কয়েকজনের বয়ান সংগ্রহ

হেডলাইন্স ত্রিপুরা ওয়েব ডেস্কঃ নজির বিহীনভাবে ২০১৭ সালে রাজ্যের বুকে দুই সাংবাদিককে নৃশংস খুনের ঘটনার তদন্তের জাল প্রায় গুটিয়ে আনছে সিবিআই। এবার শান্তনু ভৌমিক হত্যা মামলায় তার পরিবারের পক্ষে নিযুক্ত আইনজীবীর সাথে সাক্ষাত করলেন সিবিআই’র দুই পদাধিকারী। শনিবার রাজধানীর ধলেশ্বরে সিনিয়র আইনজীবী সম্রাট কর ভৌমিকের বাড়িতে গিয়ে তার সঙ্গে দীর্ঘ সময় চাঞ্চল্যকর এই হত্যা মামলার বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে জানতে চাইলেন কেন্দ্রীয় তদন্তকারীরা। এর পাশাপাশি শান্তনু – সুদীপ হত্যা মামলা নিয়ে আরো বেশ কয়েকজনের সাথেও সাক্ষাত করেন সিবিআই’র অফিসারেরা। জেনে নেন তাদের বয়ান।

         দুই তরতাজা সাংবাদিকের নৃশংস খুনের কথা কখনো ভুলবেন না রাজ্যবাসী। কি নৃশংসতায় দুজনকে খুন করা হয়েছে সেটা মনে পড়লে এখনো শিউরে উঠেন রাজ্যের আমজনতা। ২০১৭ সালের শেষদিকে মাত্র দুমাসের ব্যবধানে খুন হয়েছিলেন তরুণ সাংবাদিক শান্তনু ভৌমিক এবং অপরাধ বিষয়ক সাংবাদিক সুদীপ দত্ত ভৌমিক। ওই বছরের ২০ সেপ্টেম্বর জিরানিয়ার মান্দাইয়ে একদল ঘাতকের সংঘবদ্ধ আক্রমণে মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছিল শান্তনু ভৌমিকের। ঠিক তার দুমাসের মাথায় ২১ নভেম্বর আরকে নগরস্থিত টিএসআর দ্বিতীয় ব্যাটালিয়নের হেড কোয়ার্টারে এ কে 47 রাইফেলের গুলিতে বর্বরোচিতভাবে খুন করা হয় ৪৮ বর্ষীয় সাংবাদিক সুদীপ দত্ত ভৌমিককে। পরপর দুই সাংবাদিক খুনের ঘটনায় বেশ চাপে পড়ে যায় তদানীন্তন সিপিএম সরকার। সুদীপকে খুন কাণ্ডে অভিযোগ উঠে খোদ টিএসআর দ্বিতীয় বাহিনীর কমান্ডেন্ট তপন দেববর্মা এবং তার দেহরক্ষীদের বিরুদ্ধে। আর শান্তনু খুন হয় রাজনৈতিক সংঘর্ষের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে। যে কারণে দুই সাংবাদিক খুনের সুষ্ঠু বিচারের জন্য সিবিআই তদন্তের জোরালো দাবি তুলেন সাংবাদিক মহল। যদিও তদানীন্তন বাম সরকার সিবিআই তদন্ত দেয় নি। আর সিবিআই’র দাবিতে দিল্লি পর্যন্ত দরবার করেন রাজ্যের সাংবাদিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। এই অবস্থায় রাজ্যে ক্ষমতার পট পরিবর্তন হয়। প্রত্যাশা মতোই বিজেপি নেতৃত্বাধীন সরকার দায়িত্ব গ্রহণের পর শান্তনু সুদীপ হত্যাকান্ডে সিবিআই তদন্তের সিদ্ধান্ত নেয়। সে মোতাবেক সিবিআই’র হাতে তদন্তভার ন্যস্ত করা হয়। যা এখনো চলমান রয়েছে। বেশ কয়েক মাস ধরে চাঞ্চল্যকর এই দুই হত্যাকান্ডের তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। ইতিমধ্যে এই দুই হত্যা মামলায় সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের জিজ্ঞাসাবাদ চালায় সিবিআই’র টিম। বয়ান নেওয়া হয় বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের সম্পাদক এবং সিনিয়র সাংবাদিকদেরও। এই পরিস্থিতিতে শনিবার সিবিআই’র দুই পদস্থ আধিকারিক সাক্ষাত করেন সিনিয়র আইনজীবী সম্রাট কর ভৌমিকের সঙ্গে। রাজধানীর ধলেশ্বর দেবেন্দ্র রোড এলাকায় আইনজীবীর বাসভবনে গিয়ে কথা বলেন তদন্তকারীরা। প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে আলাপ আলোচনা হয় তাদের মধ্যে। সূত্রে জানা গেছে মূলত শান্তনু ভৌমিক হত্যা মামলা সম্পর্কে আরো কিছু তথ্য জানতে আইনজীবীর সাথে দেখা করেছেন কেন্দ্রীয় সংস্থার তদন্তকারীরা। কারণ শান্তনু খুনের পর তার পরিবারের হয়ে উচ্চ আদালতে এই মামলা লড়ছেন সম্রাট কর ভৌমিক। তাই এবিষয়ে জানতে দুই সিবিআই অফিসার তার বাসভবনে পা রাখেন। জানা যায় দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনায় বেশ কিছু ইতিবাচক তথ্য উঠে এসেছে। যেগুলি খুনের রহস্য উন্মোচনে যথেষ্ট সহায়ক হবে বলেও মনে করা হচ্ছে।

  • Link Shortener

  • http://headlinestripura.in/z/642

Leave a Comment